1. jasimlohactgbd@gmail.com : DailyChattogram :
  2. contact.smrobel@gmail.com : DainikChattogram :
রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩, ০৬:০২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম

লোহাগাড়ায় অবাধে বালু উত্তোলন, হুমকির মুখে ডলু ব্রিজ

নিজস্ব প্রতিনিধি
  • আপডেটের সময় : রবিবার, ১০ অক্টোবর, ২০২১
  • ১১০ নিউজ ভিউ
লোহাগাড়ায় ডলু খালের ওপর নির্মিত বেইলি ব্রিজটির নিচের অবস্থা। ছবি: চট্টগ্রাম।

বালুখেকোদের কবলে পড়েছে চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার ডলু খাল। ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের ফলে হুমকির মুখে পড়েছে এই খালের উপর নির্মিত বেইলি ব্রিজ। এটির পিলারের কাছে সৃষ্টি হয়েছে ৩০-৪০ ফুট আকারের গর্ত। ব্রিজটির নিচে ও পাশ থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের কারণে নিচের পিলার ভেসে উঠেছে। এতে ব্রিজটি হুমকির মধ্যে রয়েছে বলে জানান স্থানীয় বাসিন্দারা।

জানা যায়, উপজেলার পুটিবিলা-চুনতি এই ইউনিয়নের ভেতর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে ডলুখাল। ওই খালের ওপর পুটিবিলা-চুনতি সংযোগ সড়কে ২০ বছর আগে নির্মিত হয়েছে ব্রিজটি। এটি লোহাগাড়া, বান্দরবানের আলীকদম ও লামা উপজেলার সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করেছে।পুটিবিলা ও চুনতিবাসীর মধ্যে যাতায়াতের একমাত্র ব্রিজ এটি। এই ব্রিজ দিয়ে পুটিবিলার এমচরহাট-পানত্রিশা-ফারেঙ্গা হয়েও বিভিন্ন স্থানে যাওয়া যায়। বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইনে ব্রিজ থেকে সর্বনিম্ন এক কিলোমিটারের মধ্যে বালু উত্তোলন নিষিদ্ধ। কিন্তু আইনের তোয়াক্কা না করেই বালু উত্তোলন অব্যাহত রাখা হয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ব্রিজটির ওপর দিয়ে প্রতিদিন শত শত যান চলাচল করছে। স্কুল, মাদ্রাসা ও কলেজের শিক্ষার্থীসহ শত শত মানুষ এই ব্রিজ দিয়ে চলাচল করে। বালু উত্তোলনের কারণে ব্রিজটির বেইজড দেখা যাচ্ছে। গাড়ি চললে ব্রিজটি নড়ে ওঠে। ওই মুহূর্তে মনে হয় ব্রিজ ভেঙে পড়ে যাবে। বালুখেকোরা ব্রিজের নিচে ও পাশ থেকে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলনের কারণে ব্রিজটির নিচের পিলার ৩০-৪০ফুটের মতো ভেসে উঠেছে। এর কারণে বর্তমানে এটি হুমকির মুখে পড়েছে।

স্থানীয় এলাকাবাসীরা জানান, বেইলি ব্রিজটি এলাকার গুরুত্বপূর্ণ। এই ব্রিজ ভেঙে পরলে হাজার হাজার মানুষের চলাচলে চরম ভোগান্তির সৃষ্টি হবে। বালু উত্তোলনের কারণে এই ব্রিজটি হুমকির মুখে। বালু খেকোরা অনেক বেশি প্রভাবশালী। এরা প্রভাব খাটিয়ে নিয়মিত বালু উত্তোলন করে যাচ্ছে। এই বালু উত্তোলন বন্ধ না হলে আমাদের কৃষি জমি রক্ষা করা মুশকিল হয়ে দাঁড়াবে। অচিরেই ব্রিজটির দ্রু সংস্কারের জোর দাবী জানাচ্ছি।

এলাকার বাসিন্দা কৃষক হোসেন বলেন, নিজের ১০ শতক জমিতে চাষাবাদ করে তাঁর সংসার চলত। কিন্তু বালু ব্যবসায়ীদের কারণে সব ডলুর পেটে গেছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্যরা জানান, অপরিকল্পিতভাবে বালু উত্তোলনের কারণে পুটিবিলা বাজার, মসজিদ ও ডলু ব্রিজ হুমকির মুখে। এইগুলি যে কোনো সময় খালে বিলীন হয়ে যেতে পারে। তাই অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধ করার জন্য প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। তারা ব্রিজটি দ্রুত সংস্কারের দাবিও জানান।

এ ব্যাপারে পুটিবিলা ইউপি চেয়ারম্যান মো. ইউনুছ জানান, পুটিবিলা-চুনতি এই দুই ইউনিয়নের বাসিন্দাদের যাতায়াতের জন্য এটি অত্যন্ত জনগুরুত্বপূর্ণ ব্রিজ। এলাকার কিছু বালুখেকোরা বালু উত্তোলনের কারণে ব্রিজটির বেইজড ৩০ ফুটের বেশি দেখা যাচ্ছে। ফলে, অনেক ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। দ্রæত সংস্কারের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করেন তিনি।

এ বিষয়ে কথা হলে চুনতি ইউপির চেয়ারম্যান মুহাম্মদ জয়নুল আবেদীন জনু কোম্পানী জানান, ব্রিজের নিচে অবৈধভাবে বালু উত্তোলেনের কারণে এখন হুমকির মুখে রয়েছে। যেকোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই দ্রুত সংস্কারের জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি।

লোহাগাড়া উপজেলা প্রকৌশলী মো. ইফরাদ বিন মুনীর বলেন, ডলু খালের ওপর ব্রিজ নির্মাণ বিষয়ে আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। নতুন ব্রিজ নির্মাণের জন্য তালিকা পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আহসান হাবিব জিতু জানান, অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও বালুখেকোর বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ইতোমধ্যে, উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ এবং বহু বালু জব্দ করা হয়েছে। বহু বালুখেকোর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ডলুখালের ওপর নির্মিত ব্রিজটির নিচ থেকে কোন ধরনের বালু উত্তোলন করা যাবে না বলে জানান তিনি।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে ভাগ করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2021 Daily Chattagram
Theme Customization By NewsSun