1. jasimlohactgbd@gmail.com : DailyChattogram :
  2. contact.smrobel@gmail.com : DainikChattogram :
সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০৬:৪০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম

লোহাগাড়ায় প্রবাসীর স্ত্রীকে অমানুষিক নির্যাতনের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেটের সময় : রবিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২১
  • ১৩৩ নিউজ ভিউ

লোহাগাড়া উপজেলার পুটিবিলা ইউনিয়নের পশ্চিম তাঁতী পাড়া গ্রামে শহীদ (৩৫) নামের এক যুবক কর্তৃক প্রবাসীর স্ত্রীকে অমানুষিক নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মারধরে মারাত্মক জখমের শিকার মমতাজ বেগম (৪০) বর্তমানে লোহাগাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। শহীদ ওই এলাকার আলতাফ হোসেনের পুত্র বলে জানা গেছে।

ভিকটিমের পরিবারের অভিযোগ, থানায় অভিযোগ/মামলা না নিতে প্রভাবশাশী মহলের চাপ প্রয়োগসহ বাদীকে নানা হুমকি ধমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করতেছে।

লোহাগাড়া থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পুটিবিলা ইউনিয়নের পশ্চিম তাঁতী পাড়া গ্রামের প্রবাসী বশির আহমদের স্ত্রী মমতাজ বেগম গত ১৬ অক্টোবর অমানুষিক শারীরিক নির্যাতন শিকার হন।

ওই দিন সকাল ৮টায় বাড়ির নিকটবর্তী গুরা পুকুর পাড়ে গেলে বখাটের কবলে পড়ে।

লিখিত অভিযোগে আরও জানা যায়, শুক্রবার মমতাজ বেগম ২ কন্যা ও ১ ছেলেকে বাড়িতে রেখে চাচী শ্বাশুড়িকে ডাক্তার দেখাতে উপজেলা সদরস্থ একটি হাসপাতালে নিয়ে যায়। তিনি বাড়িতে না থাকার সুবাদে বখাটে শহীদ তার মেয়েদেরকে উত্ত্যক্ত ও ছেলেকে মারধর করে। পরদিন শনিবার সকালে গৃহবধু মমতাজ বেগম এর প্রতিবাদ করলে শহীদ বলে যে, এ ঘটনার বিষয়ে কাউকে নালিশ দিলে তার পরিবারকে জানে মেরে ফেলবে।  পরে, বখাটে শহীদ প্রবাসীর স্ত্রী মমতাজ বেগমকে ঝাপটাইয়া ধরে গালের বামপার্শ্বে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে কামড় দেয়। পরে,  শহীদের পরিবারের অন্য সদস্যরাও তাকে মারধর করে। এতে গৃহবধু মমতাজ বেগমের শরীরে ফুলা ও রক্তাক্ত জখম হয়।

মমতাজ বেগমের ননদ আরেফা বেগম জানান, ওই সময় তাকেও বখাটে শহীদের পরিবারের সদস্যরা মারধর করে। পরে, তিনি ডাক-চিৎকার করলে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যায় । পরে, স্বজনরা নির্যাতনের শিকার আহত গৃহবধূকে লোহাগাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

ননদ আরেফার স্বামী মো. আলতাপ জানান, স্বামী বিদেশে থাকার সুবাদে বখাটে শহীদ আমার ভাবীকে প্রায় সময় উত্ত্যক্ত করত। এমনকি যাতায়াতের পথে তার অশালীন কটূক্তির কারণে ঘর থেকে বের হতে পারত না।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত মো. শহীদের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মুঠোফোন নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. আবদুর রশিদ জানান, মহিলাকে মারপিট করেছে বলে শুনেছি। তাদের মধ্যে কিছুদিন ধরে ঝামেলা চলছে। আমাদের পরিষদের চেয়ারম্যান বিষয়টি সালিশ বিচারের মাধ্যমে সমাধান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এ ব্যাপারে গৃহবধু মমতাজ বেগম বাদী হয়ে মো. শহীদসহ ৫ জনকে বিবাদী করে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

লোহাগাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ জাকির হোসেন মাহমুদ বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে ভাগ করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2021 Daily Chattagram
Theme Customization By NewsSun