শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০১:৫৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ নির্বাচন : ৬৮ প্রার্থীর প্রতীক প্রদান কেন্দ্রীয় আ.লীগ নেতা আমিনুল ইসলাম পুণরায় বার আউলিয়া ডিগ্রি কলেজ সভাপতি মনোনীত এসএসসি পরীক্ষার্থীকে উত্ত্যক্ত করায় ৬মাসের জেল, আনসার সদস্য আহত ডিসি মমিনুরের বিরুদ্ধে চক্রান্তের প্রতিবাদে ১০১ বীর মুক্তিযোদ্ধার বিবৃতি চট্টগ্রামে সীরাত মাহফিলের প্রস্তুতি সভায় ৩ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা চট্টগ্রামে চিকিৎসকদের ১০% ছাড় দিচ্ছে হাঙ্গার কিলার্স লোহাগাড়ায় ৫০ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নেই ৬৮ জন শিক্ষক, ব্যাহত শিক্ষা কার্যক্রম শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে দেশ-বিদেশে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে: মোছলেম উদ্দীন এমপি চট্টগ্রামে একে-২২ রাইফেলসহ ৩ ডাকাত আটক লোহাগাড়ায় পাহাড় কাটার দায়ে ২ জনকে কারাদন্ড

লোহাগাড়ায় সড়াইয়া খালের গর্ভে বিলীন হচ্ছে কৃষকের ফসলী জমি

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেটের সময় : বুধবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৬৬ নিউজ ভিউ

লোহাগাড়া উপজেলার পুটিবিলা ইউনিয়নের সড়াইয়া গ্রামের ওপর দিয়ে প্রবাহিত সড়াইয়া খাল হতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই ইউনিয়নের গৌড়স্থান গ্রামের মোহাম্মদ ইকবাল ওরফে বালু ইকবাল নামে প্রভাবশালী এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে বালু উত্তোলনের এই অভিযোগ উঠেছে। বালু উত্তোলনের ফলে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক পরিবারদের পক্ষে মোহাম্মদ হাসান লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছেন।  ২৯ ডিসেম্বর বুধবার এই অভিযোগ দায়ের করা হয়।

অভিযোগে প্রকাশ, বালু ইকবাল দীর্ঘদিন থেকে সড়াইয়াখালের হরি দক্ষিণের চর নামক এলাকায় কৃষকদের খতিয়ানভুক্ত ফসলী জমি ও সড়াইয়া খাল থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছে। ফলে, বেশ কয়েক কৃষক পরিবারের ফসলী জমির ব্যাপক ক্ষতি হয়। শুধু তা’ নয় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের অনেক ফসলী জমি ইতোমধ্যে সড়াইয়া খালের গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। আগামী বর্ষা মৌসুমে আরো ফসলী জমি উক্ত খালের গর্ভে বিলীন হওয়ার পথে। ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকগণ অবৈধ বালু উত্তোলনে বাধা দিলে গেলে নানা হুমকি সম্মুখীন হন। বালু উত্তোলনকারী ইকবাল একজন গৌড়স্থান গ্রামের প্রভাবশালী ব্যক্তি বলে জানান ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা। সংঘবদ্ধ লোকজন নিয়ে তিনি প্রভাব বিস্তার করে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছেন ড্রেজার মেশিন দ্বারা।
জানতে চাওয়া হলে অভিযুক্ত ইকবাল বলেন, তিনি দু’বছরের পূর্ব থেকে বালু উত্তোলন করে আসছেন। সড়াইয়া খাল থেকে বালু উত্তোলনের কোন বৈধ কাগজপত্র তার কাছে নেই বলে জানান তিনি।
এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান হাবীব জিতু বলেছেন, এ বিষয়ে তিনি প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করছেন।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে ভাগ করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2021 Daily Chattagram
Developed By Shah Mohammad Robel