সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৫৯ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
এসএসসি পরীক্ষার্থীকে উত্ত্যক্ত করায় ৬মাসের জেল, আনসার সদস্য আহত ডিসি মমিনুরের বিরুদ্ধে চক্রান্তের প্রতিবাদে ১০১ বীর মুক্তিযোদ্ধার বিবৃতি চট্টগ্রামে সীরাত মাহফিলের প্রস্তুতি সভায় ৩ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা চট্টগ্রামে চিকিৎসকদের ১০% ছাড় দিচ্ছে হাঙ্গার কিলার্স লোহাগাড়ায় ৫০ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নেই ৬৮ জন শিক্ষক, ব্যাহত শিক্ষা কার্যক্রম শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে দেশ-বিদেশে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে: মোছলেম উদ্দীন এমপি চট্টগ্রামে একে-২২ রাইফেলসহ ৩ ডাকাত আটক লোহাগাড়ায় পাহাড় কাটার দায়ে ২ জনকে কারাদন্ড লোহাগাড়ায় অভিযানে দোকানদারকে লাখ টাকা জরিমানা পটিয়ায় সাবেক মেয়রের ছেলের গুলিতে মা নিহত

লোহাগাড়া সাতগড় বনবিট এলাকায় অর্ধশত গাছ কেটে ফেলার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেটের সময় : সোমবার, ২৬ এপ্রিল, ২০২১
  • ১৪৩ নিউজ ভিউ

দক্ষিণ চট্টগ্রাম বন বিভাগের চুনতি ফরেষ্ট রেঞ্জের অধীন সাতগড় বনবিট এলাকার বিভিন্ন প্রজাতির ৫০টি গাছ অবৈধভাবে কেটে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। এরমধ্যে শতবর্ষী মাদারট্রিও রয়েছে বলে জানান স্থানীরা। লোকজনদের মতে সাতগড় রেসাইঙ্গা ঘোনা এলাকা থেকে সম্প্রতি এসব গাছ কাটা হয়েছে। আবুল হোসেন নামে জনৈক অসাধু কাঠ ব্যবসায়ী সাতগড় বনবিট কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের যোগসাজশে এসব গাছ কেটেছে। অবৈধভাবে গাছগুলো কেটে নেয়ায় আশ্রয়স্থল হারাচ্ছে বন্য পশু-পাখি। সরকার হারাচ্ছে মোটা অংকের রাজস্ব। কেটে ফেলা গাছের নিচের অংশ মোথা আগুন দ্বারা পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে, যাতে সহজেই বুঝা না যায়।

এই ব্যাপারে সাতগড় বনবিট কর্মকর্তা মাসুদ পারভেজ জানান, এলাকায় অষুধী বাগানের জন্য জায়গা পরিস্কার করা হচ্ছে। কিছু গাছের ডালপালা কাটা হয়েছে। গাছ কেটে নেয়ার অভিযোগ সত্য নয়। চুনতি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন জানান, রোসাইঙ্গা ঘোনা এলাকা হতে বড় আকারের কিছু গাছ কেটে নেওয়ার সংবাদ শুনেছেন। চুনতি ফরেষ্ট রেঞ্জ সূত্র জানান, কয়েকটি গাছ কেটে নিয়ে অসাধু ব্যবসায়ীরা। তবে এব্যাপারে তিন জনকে আসামী করে মামলা রুজু করা হয়েছে। এলাকার সচেতন মহলের মতে, গাছ কাটা ব্যাপারে তদন্ত সাপেক্ষে দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন। অন্যতায় এভাবে বনাঞ্চলের গাছ কেটে নিয়ে যাবে অসাধু ব্যক্তিরা ।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. জয়নুল আবেদীন জানান, সাতগড় বনবিটের পুরতান অফিস এলাকা থেকে বিভিন্ন প্রজাতির মাদারট্রিসহ একাধিক গাছ কেটে নেয়ার বিষয়টি অবগত হয়েছি। এ ব্যাপারে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ কামনা করছি।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ বনবিভাগের আওতাধীন পদুয়া রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) শওকত ইমরান আরফাত জানান, সুফল প্রকল্পের আওতায় নতুনভাবে পুণঃরক্ষার জন্য বনায়ন করা হচ্ছে। লোকবল সংকটের কারণে বনবিভাগের লোকজন উপস্থিত না থাকায় হয়তো শ্রমিকরা গাছগুলো কেটে ফেলেছে। কাজ তদারকির জন্য রেঞ্জ কর্মকর্তাকে সশরীরে উপস্থিত থাকার নির্দেশ দেয়া হবে।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে ভাগ করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2021 Daily Chattagram
Developed By Shah Mohammad Robel